শিল্প আর বাস্তব

মাঝে মাঝে নিজেকে একটা প্রশ্ন করি, শিল্প আসলে কি? প্রতিটি মানুষ তার নিজের মতো করে কথাটার বর্ণনা দিয়ে থাকে।
তবে প্রকৃত অর্থে শিল্প হয়তো একটা নির্বিকার মাধ্যম, একটা মঞ্চ নিজের ভাব প্রকাশ করার।
কিছু ছোটো ছোটো অনুভূতি, কিছু স্বপ্ন যা হয়তো একত্রিত হয়ে কিছু বৃহৎ সৃজন করে।
তবে একটা জিনিস বেশ লক্ষ্য করার মতো, শিল্প আর শিল্পী দুজনে একে অপরের পরিপুরক।
শিল্প ছাড়া শিল্পী হয়তো শুধুমাত্র একটা শরীর, যার প্রাণ-প্রতিষ্ঠা হয়নি! আবার শিল্পী ছাড়া শিল্প নিষ্প্রাণ।

অনেকে বলে যে প্রতিটা মানুষ নিজ নিজ ভাবে কিছু না কিছু তে পারদর্শী, তবে এটা লক্ষ্য করার মতো যে কতজন নিজের স্বপ্নকে অনুসরণ করে যেতে পারে, দায়িত্ববোধ হয়তো কোথাও শিল্প কে চোখ রাঙিয়ে বশ্যতা স্বীকার করতে বাধ্য করে।
সমাজে নজর রাখলে হয়তো এমন অনেক উদাহরণ দেখা যাবে, যেখানে হয়তো রঙের তুলি হার মেনেছে চাকরির কাছে, যেখানে গানের তানপুরা থেমে গেছে কিংবা পায়ের নুপুর অথবা লেখার কলম হেরে গেছে বৃদ্ধ বাবা মায়ের খুশির স্বার্থে। এটা সত্যি, অনেকে বলবেন যে অর্থ উপার্জন করাটা সমাজের প্রধান প্রায়োরিটি।
সে ভাবে দেখতে গেলে, সত্যি সবাই যে তাদের স্বপ্নকে অনুসরণ করে সফল হবে এটা ভাবা, দিবাস্বপ্ন ছাড়া আর কিছুই না।

যদি সব তুলির টান একটা পিকাসোর জন্ম দিত তাহলে তো হয়েই যেত, যদি প্রতিটি কলমের শব্দ একটা করে রবি ঠাকুর আবিষ্কার করতো তাহলে তো বুদ্ধিজীবী মহলে তোলপাড় হয়ে যেত।
কিন্তু আমাদের একটা ভুল আছে বৈকি, আমরা সবসময় দ্বিতীয় আইনস্টাইন, পিকাসো, রবীন্দ্রনাথ হতে বদ্ধ-পরিকর। কখনো কেউ নিজের নাম এর প্রথম ব্যক্তি, হওয়ার চেষ্টা করি না।
তবে হ্যাঁ, হয়তো সময়ের দাবিতে শিল্প সেই প্রাধান্য পায় না, তবে একটু সুযোগ পেলে সেই পুরোনো অভ্যাস, সেই পুরোনো শিল্পীটা কে জাগানো যায় বৈকি…

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s